মোনালিসা 19 তম নির্বাচনে পার্থর হয়ে প্রচারণা চালাচ্ছিলেন, এই ছবি বেরিয়ে এল

মোনালিসা 19 তম নির্বাচনে, পার্থর হয়ে প্রচারণা চালাচ্ছিলেন, এই ছবি বেরিয়ে এল নির্বাচনে পার্থর

সূত্রের খবর, মোনালিসা পার্থর বাড়িতে গিয়েছিলেন। শিক্ষকের বিরুদ্ধে একাধিক অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। কাজী নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের অধ্যাপক মোনালিসা দাস অনেক অদক্ষ প্রার্থীকে চাকরি দিয়েছেন। সম্প্রতি এমনই অভিযোগ উঠেছে মোনালিসার বিরুদ্ধে। আবার পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের সঙ্গে ভালো সম্পর্কের সুযোগে তিনি এই কাজ করেছেন বলেও দাবি করা হয়। এখন আরও চাঞ্চল্যকর তথ্য উঠে এসেছে: মোনালিসা দাসও 2021 সালের নির্বাচনে পার্থ চ্যাটার্জির পক্ষে প্রচারণা চালাতে বেরিয়েছেন। পার্থ চ্যাটার্জি যেখানে প্রার্থী ছিলেন সেখানে পশ্চিম নির্বাচনী এলাকায় বেহালা প্রচার চালাচ্ছেন এমন বেশ কয়েকটি ছবি দেখা গেছে। সম্প্রতি একটি ছবি সামনে এসেছে যেখানে আমরা মোনালিসাকে তৃণমূলের ব্যানার ধারণ করতে দেখি। মুখে তৃণমূলের লোগোর মাস্ক, মাথায় লোগোর টুপি। শিক্ষিকার এই ছবিটি দেখায় যে তিনি পার্থ চ্যাটার্জির গ্রামাঞ্চলে যাচ্ছিলেন। সূত্রের খবর, প্রচারের কাজ সেরে পার্থ চ্যাটার্জির কাছে গিয়েছিলেন মোনালিসা। মোনালিসার বিরুদ্ধে স্বজনপ্রীতির অভিযোগ উঠেছে। এবার তার প্রমাণ পাওয়া গেল, তিনিও নির্বাচনে অংশ নিয়েছিলেন।

👉 অর্পিতা ইডিকে বলেছেন যে পার্থর বিবাহ বিচ্ছেদের পরে তিনি আমার সাথে পরিচিত হয়েছেন

পার্থর গ্রেফতারের পর অর্পিতা মুখার্জির নাম প্রকাশ পেলেও মোনালিসা দাস পার্থর ঘনিষ্ঠ বলেও উল্লেখ করা হয়। বর্তমানে তিনি কাজী নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের বিভাগীয় প্রধান। সম্প্রতি অভিযোগ উঠেছে, যোগ্যতা না থাকা সত্ত্বেও এই শিক্ষক অনেককে চাকরি দিয়েছেন। শুধু তাই নয়, মোনালিসা অনেককে স্বর্ণপদকও দিয়েছেন। কয়েকদিন আগে বেশ কয়েকজন চাকরিপ্রার্থী প্রমাণসহ বিকাশ ভবনে অভিযোগও করেছিলেন।

কয়েক মাস আগে মোনালিসা দাস যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষকতার পদের জন্য আবেদন করেছিলেন। সূত্রে জানা গেছে, তার গ্রেড খারাপ হওয়ায় তাকে সাক্ষাৎকারে আমন্ত্রণ জানানো হয়নি। এরপর পার্থ চট্টোপাধ্যায় বলে সতর্কবার্তা দেন মোনালিসা। এসব অভিযোগ সামনে আসার পর তারা শিক্ষককে বারবার ফোন করলেও তার কাছে পৌঁছানো যায়নি। তবে সাবেক মন্ত্রীর সঙ্গে তার সুসম্পর্ক নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে বিভিন্ন সূত্রে।