E -Passport আবেদন বাতিল করার নিয়ম e-Passport ভুল সংশোধন ২০২২

E -Passport আবেদন বাতিল করার নিয়ম e-Passport ভুল সংশোধন ২০২২

প্রিয় পাঠক বন্ধুরা, আজ আমরা এই বিষয়ে কথা বলছি: ভুল হলে কীভাবে একটি ই-অনলাইন আবেদন সংশোধন বা বাতিল করা যায়। অনেক বন্ধু তাদের প্রয়োজনে খুব দ্রুত পাসপোর্ট পাওয়ার উদ্যোগ নিয়েছিল এবং ইতিমধ্যেই অনলাইনে ইলেকট্রনিক পাসপোর্টের আবেদন সম্পন্ন হয়েছে। অনুরোধের পরে ব্যাঙ্কে তহবিল জমা করার পরে, অনুরোধের সময় কিছু ভুল হয়েছে বলে মনে হচ্ছে। এই ক্ষেত্রে, আপনাকে কীভাবে একটি ইলেকট্রনিক পাসপোর্টের জন্য আবেদনে ত্রুটি সংশোধন করতে হবে বা আবেদন প্রত্যাখ্যান করতে হবে সে সম্পর্কে ভাবতে হবে।

ই-পাসপোর্ট বাতিল করার নিয়ম

অনলাইনে ই-পাসপোর্টের জন্য আবেদন করার পর, বন্ধুদের নিজের নাম বা পিতামাতার নাম, জন্ম তারিখ, ঠিকানা বা অন্যান্য ত্রুটি থাকতে পারে। এবং তারপরে আপনাকে অনুরোধটি পরিবর্তন করতে হবে বা অনুরোধটি বাতিল করতে হবে। আবেদনে ভুল হওয়ার পর বিভিন্ন পর্যায়ে তা শনাক্ত করা যায়। অতএব, সংশোধন পদ্ধতি ভিন্ন হতে পারে। তাই আজ আমরা জানবো কিভাবে ই-পাসপোর্ট আবেদনের ত্রুটি সংশোধন বা বাতিল করা যায়।

 

ত্রুটিগুলি সাধারণত 3টি ধাপে সনাক্ত করা যেতে পারে :

ইলেকট্রনিক পাসপোর্ট চাওয়া হলেও টাকা ব্যাংকে জমা হয়নি। অন্য কথায়, এই ধরনের ত্রুটি খুব তাড়াতাড়ি সনাক্ত করা যেতে পারে।

আবেদনের পর টাকা হয়তো ব্যাংকে জমা হয়েছে, কিন্তু কাগজপত্র এখনো জমা হয়নি বা পাসপোর্ট এখনো ছাপা হয়নি।

পাসপোর্ট প্রিন্ট করার সময় ভুল হতে পারে।

বন্ধুরা যখন পাসপোর্টের জন্য আবেদন করেন, তখন এটি পরীক্ষা করা গুরুত্বপূর্ণ, এবং এটি অন্তত একবার অন্যদের দেখানো খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এর কারণ হল একজনের ভুলগুলি প্রায়ই নিজের দ্বারা অলক্ষিত হয়, যা অন্যদের পক্ষে আবিষ্কার করা সহজ। অতএব, আপনি নিজেই এটি পরীক্ষা করা উচিত এবং অন্যদের দেখানো উচিত।

অনলাইনে ই-পাসপোর্টের জন্য আবেদন করার পর, আবেদনের মেয়াদ শেষ হওয়ার তারিখ থাকলে আবেদনের সারাংশ দেওয়া হবে। আপনি যদি ব্যাঙ্কে কোনও টাকা জমা না করে থাকেন তবে আপনাকে আবেদনের সময়সীমার জন্য অপেক্ষা করতে হবে। কারণ এই সময়ের মধ্যে আপনি যদি কোনো টাকা বা অন্যান্য নথি জমা না দেন তাহলে আপনার আবেদন বাতিল হয়ে যাবে। এবং আপনার আবেদন প্রত্যাখ্যান করার পরে, আপনার কাছে একটি নতুন আবেদন জমা দেওয়ার বিকল্প রয়েছে। এই ক্ষেত্রে, আপনাকে সঠিক পথে আবার আবেদন করতে হবে।

ই-পাসপোর্টের জন্য অনলাইনে আবেদন করার পরে এবং ব্যাঙ্কে তহবিল জমা করার পরে, যদি এটি ভুল বলে প্রমাণিত হয়, আপনাকে অ্যাপয়েন্টমেন্টের দিনে প্রয়োজনীয় নথি বা প্রমাণ সহ আবেদন জমা দিতে হবে। যদি পাসপোর্ট এখনও প্রিন্ট করা না হয়, তাহলে আপনার ভুল সংশোধন করার সুযোগ আছে। পাসপোর্ট কর্মকর্তারা খুব ব্যস্ত, তাই এই ধরনের সংশোধন কঠিন, তবে এটি সংশোধন করা যেতে পারে।

তবে পাসপোর্ট ছাপানো থাকলে পাসপোর্ট পাওয়ার আগে সংশোধনের কোনো সম্ভাবনা নেই। এই ক্ষেত্রে, পাসপোর্ট পাওয়ার পরে, আপনাকে প্রয়োজনীয় পরীক্ষা এবং নথিপত্র সহ সংশোধনের জন্য আবেদন করতে হবে। অন্য কোন উপায় নেই।

 

 

আরো জানুন :

 

৭ই মার্চের উক্তি, ক্যাপশন ও ছন্দ

মায়ের ভালোবাসা নিয়ে উক্তি, স্ট্যাটাস এবং কবিতা

একা থাকা সম্পর্কে বিখ্যাত উক্তি

মন খারাপের উক্তি, স্ট্যাটাস ও কবিতা

নদী সম্পর্কে কবিদের সেরা বাক্যাংশ